কামারহাটি পৌরসভার উল্টোদিকে আয়ন শ্বেতার ফ্ল্যাটের সন্ধান

বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::শুরু হয়েছিল স্কুলের নিয়োগ দুর্নীতি দিয়ে আর এখন সেই কেস হয়ে গেল পৌরসভার নিয়োগ দুর্নীতি।

 

 

এবার হুগলির প্রমোটার অয়ন শীলের গ্রেফতারির পর দুর্নীতিতে যোগ উঠে এসেছে রহস্যময়ী নারীর যোগ। ইডি সূত্রে খবর, অয়ন শীলের ৩২টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের খোঁজ মিলেছে এখনও অবধি। তার মধ্যে এই বান্ধবীর নামেও একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট আছে। তবে কে এই বান্ধবী? সূত্রের খবর, অয়নের বান্ধবী শ্বেতা চক্রবর্তী। উত্তর ২৪ পরগনার কামারহাটি পুরসভার ঠিক উল্টোদিকে জগন্নাথ নিকেতনে তাঁদের একটি ফ্ল্যাট রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, শ্বেত কামারহাটি পুরসভার ইঞ্জিনিয়ার। ইডি কোর্টে শ্বেতাকে আয়নের বান্ধবী বলে উল্লেখ করেছে। তবে প্রতিবেশীরা বলছেন, অয়ন শীল এবং শ্বেতা চক্রবর্তী আবাসনে মামা-ভাগ্নির পরিচয়ে থাকতেন। সূত্রের খবর, যদিও অয়নের স্ত্রী এবং পুত্র থাকেন হুগলিতে। আবাসনের এক আবাসিক জানান, “এক বছর আগে এখানে এসেছিল অয়ন শীল। আমরা জানি ওরা সম্পর্কে মামা-ভাগ্নি। আমাদের সঙ্গে তেমন একটা মেলামেশা করতেন না। ঘরে ঢুকেই দরজা বন্ধ করে দিত। শুনেছি ওদের এখানে একটি ফ্ল্যাট ছিল। তবে বছর খানেক অয়নকে দেখিনি। গত সপ্তাহে গাড়ি নিয়ে শ্বেতাকে আসতে দেখেছি।” এবার ওই অঞ্চলে সাংবাদিক ও ক্যামেরার ছোটা ছুটি দেখে সকলেই বিস্মিত।

তবে জানা গেছে শ্বেতা চক্রবর্তীর নিজস্ব বাড়ি নৈহাটিতে। স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মী ছিলেন তাঁর বাবা। ওই বান্ধবী অয়নের প্রোমোটারির ব্যবসা সামলাতেন বলে সূত্রের খবর। এলাকার লোকজন জানতেন ওই তরুণী মডেলিং করেন। বিলাসবহুল গাড়িতে চড়ে যাতায়াতও করতেন তিনি। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও অয়ন শীলের ৩২টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। তার মধ্যে তিন মহিলার নামেও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। এরইমধ্যে একটি আবার বান্ধবীর অ্যাকাউন্ট বলে ইডি সূত্রে খবর। রহস্য ক্রমাগত ঘনীভূত হচ্ছে। ইডি সূত্রের দাবি আগের দিন শ্বেতা আইনকে হোয়াটস এপ করে জানায়, ‘ইডির তল্লাসি হতে পারে। মালপত্র সরিয়ে দাও।’ ইডি বিস্ময়ের সঙ্গে ভাবছে কি করে এই খবর শ্বেতা পেলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *