নিয়োগ নিয়ে তৃণমূল বিধায়কের সুপারিশপত্র পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে – চাঞ্চল্য চারিদিকে

বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে শাসকদলের সম্পূর্ণভাবে ‘ল্যাজে গোবরে’ অবস্থা।

এই পরিস্থিতিতে আবার নতুন বিতর্ক। অভিযোগ উঠছে, পরীক্ষায় ভালো ফল করে নয়,তৃণমূল নেতাদের সুপারিশেই স্কুলে নিয়োগ করা হয়েছে বহু যুবক-যুবতীকে। এরকম এক পরিস্থিতিতে বর্ধমানের এক তৃণমূল বিধায়কের ‘সুপারিশপত্র’ সামনে এল। দেখা যাচ্ছে বর্ধমান উত্তরের তৃণমূল বিধায়ক নিশীথ কুমার মালিক তাঁর বিধায়কের প্যাডে প্রাইমারিতে চাকরি দেওয়ার জন্য ‘সুপারিশ’ করেছিলেন ১১ জনের নাম। প্রাইমারি স্কুলে চাকরির জন্য সেই ‘সুপারিশপত্র’ তিনি পাঠিয়েছিলেন তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। ওই চিঠি লেখা হয়েছিল ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। স্বাভাবিক কারণেই নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

তবে বিষয়টিকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে রাজী নন নিশীথ মালিক। মঙ্গলবার দলের এক কর্মসূচিতে তাঁকে এনিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে কিছু জানি না। খোঁজ খবর নিয়ে বলতে পারব। এদিকে, ওই সুপারিশপত্র নিয়ে সুর চড়িয়েছে জেলা বিজেপি। জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় চন্দ্র বলেন, তৃণমূল সরকারের আমলে যে দুর্নীতি হয়েছে তা গোটা বিশ্বে সবচেয়ে বড় নিয়োগ দুর্নীতি। এক সময়ে শিক্ষা ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের যে গর্ব ছিল তা এরা মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছে। তারই একটি নিদর্শন হিসেবে উত্তর বিধায়ক নিশীথ মালিক একটি লেটার হেড সামনে এসেছে। সেই চিঠিতে ১১ জনের নামে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে সুপারিশ করছিলেন। ওদের নাম কেন তিনি সুপারিশ করেছিলেন তা আমরা বিজেপির তরফ থেকে জানতে চাই। কত টাকার বিনিময়ে ওইসব লোকজনের নাম সুপারিশ করা হয়েছিল তা সাধারণ মানুষ জানতে চায়। এখন তা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এদিকে তৃণমূলের প্রতিক্রিয়া না পাওয়া গেলেও তারা বিষয়টাকে গুরুত্ব দিতে চায় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *