ভুল চিকিৎসার শিকার মুখ্যমন্ত্রী

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : দীর্ঘদিন শারীরিক অসুস্থতার কারণে মুখ্যমন্ত্রী নবান্নে যেতে পারেন নি। মঙ্গলবার তিনি নবান্নে গেলেও বুধবার বিকেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে মিলিত হন।
বুধবার নবান্ন থেকে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই জানালেন, তাঁর ভুল চিকিৎসা হয়েছিল। বললেন, “আমার ইনফেকশনটা সেপটিক টাইপের হয়ে গিয়েছিল ভুল চিকিৎসার জন্য। ফলে হাতে স্যালাইনের চ্যানেলের মতো করে চ্যানেল লাগানো হয়েছিল। সাতদিন চ্যানেল করা হয়েছিল। সেই অবস্থায় বিছানা থেকে উঠতে পারিনি।” স্বাভাবিক কারণেই মুখ্যমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা নিয়ে সকলেই উদ্বিগ্ন।

উত্তরবঙ্গে হেলিকপ্টার বিভ্রাটে পায়ের যেখানে চোট লেগেছিল তাঁর। তারপরে তিনি গিয়েছিলেন স্পেনে। ফলে সেই আঘাত আরো গুরুতর হয়ে উঠেছিল। সেই নিয়েই টানা বিভিন্ন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার পর কলকাতায় ফিরে সোজা তিনি গিয়েছিলেন এসএসকেএম হাসপাতালে। রাজ্যের সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবার এক অন্যতম প্রধান স্তম্ভ হল এসএসকেএম হাসপাতাল। চিকিৎসকরা তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দিলেও, মুখ্যমন্ত্রী চেয়েছিলেন বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা করাতে। সেই মতো বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল তাঁর। পায়ের সমস্যার জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শমতো অনেকদিন বাড়িতে থাকতে হয়েছে তাঁকে। বাড়িতে বসেই প্রশাসনিক ও দলীয় সব কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *