তাইওয়ানের আকাশের কাছাকাছি চিনা বোমারু বিমান – সন্ত্রাস সৃষ্টির চেষ্টা বলে তাই সরকারের অভিযোগ

 

 

 

আন্তর্জাতিক :দিন তিনেক আগে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে চিন দাবি করেছিল তারা কখনো কোনো দেশের এক ইঞ্চি ভূখন্ড দখল করে নি ও তারা বিশ্ব শান্তির পক্ষে। এটাই তার আদর্শ উদাহরণ। আগামী বছর তাইওয়ানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। জোরকদমে চলছে তার প্রস্তুতি। এর মাঝেই ফের তাইওয়ানেক কাছে হানা দিল চিনের যুদ্ধবিমান। এর আগে বহুবার দ্বীপরাষ্ট্রটির ‘এয়ার ডিফেন্স জোনে’ঢুকে পড়েছিল এই বিমানগুলো। যা নিয়ে বেজায় ক্ষিপ্ত তাইপেই। কমিউনিস্ট দেশটিকে যোগ্য জবাব দিতে প্রস্তুত তারাও। মনে করা হচ্ছে ভোটের আগে তাইওয়ানে আতঙ্ক তৈরি করতেই এই প্রয়াস লালফৌজের। একটা ভয়ের পরিবেশ তৈরী করে অনেকটা মালদ্বীপের ধাচে নিজেদের পছন্দের লোককে সরকারে বসাতে চাইছে চিন।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা যাচ্ছে,
বুধবার ১১টি চিনা যুদ্ধবিমান তাইওয়ান প্রণালীর মধ্যরেখা অতিক্রম করেছে। এই বিষয়ে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছে, বুধবার চিনের ১১টি যুদ্ধবিমান তাইওয়ান প্রণালীর মধ্যরেখার উপর দিয়ে উড়ে যায়। লালফৌজের আগ্রাসী বিমানের ঝাঁকে ছিল জে-১০ ও জে-১৬ ফাইটার জেট। ছিল এইচ-৬ বোমারু বিমানও। চিনা রণতরীর সঙ্গে যৌথভাবে যুদ্ধের মহড়া চালাচ্ছে তাদের বিমানবাহিনী। উল্লেখ্য, চিন ও তাইওয়ানের মধ্যে বহুদিন ধরে চলছে ক্ষমতা দখলের লড়াই। গত তিন বছরে এই লড়াই আরও তীব্র হয়েছে। দ্বীপরাষ্ট্রটিকে নিজেদের দখলে আনতে মরিয়া চিন। কিন্তু ‘ড্রাগন’কে এক চুল জমিও ছাড়তে নারাজ তাইওয়ান। ফলে চাপানউতোর বেড়েই চলেছে দুদেশের মধ্যে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *