জেলে পার্থর নিরাপত্তার দায়িত্ব খুনের আসামি যতীনের উপর

বেঙ্গল ওয়াচ ডেস্ক ::ইডির বক্তব্য নিয়োগ দুর্নীতির মাস্টার মাইন্ড প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি প্রেসিডেন্সি জেলে। ওখানেই নানা সঙ্কট তৈরি হয়েছে প্রাক্তন এই মন্ত্রীকে নিয়ে। সহ বন্দিদের থেকে তাকে নানা কটুবাক্য শুনতে হচ্ছে। আর সেই নিয়ে নালিশও করেন তিনি। এবার তাকে জেলে সুরক্ষিত রাখার দায়িত্ব পেয়েছে বাঁশদ্রোণীর যতীন ওরফে যতীন্দ্রনাথ সাউ। সেই নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। স্বাভাবিক কারণেই প্রশ্ন উঠেছে,নিরাপত্তা দেবে জেল কর্তৃপক্ষ,কেন একজন কয়েদি?

 

তবে যতীন কিন্তু এই দায়িত্ব পেয়ে খুব খুশি। কিন্তু কে এই যতীন? তাকে নিয়ে প্রেসিডেন্সি জেলে আলোচনার শেষ নেই। এই যতীন্দ্রনাথ সাউ খুনের মামলার কারণে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছে। আর সেই এবার পার্থ চ্যাটার্জীর দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছে। দায়িত্ব পেয়ে তো বেজায় খুশি যতীন। যতীন জানায়, পার্থবাবু তাকে খুবই পছন্দ করে। নিজের খাবারের ভাগ থেকে মাছ–ডিম দেন। আর তাই পেয়ে বেজায় খুশি সে। কিন্তু সহবন্দি যতীনের ভয়ে আপাতত বাকিরা চুপ থাকলেও এভাবে বেশিদিন চলবে না।

২০১২ সালে প্রচণ্ড রাগের মাথায় সামনের মানুষকে এক কোপে স্বর্গগত করেন। কড়েয়া থানায় যতীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এরপর ১১ বছর মামলা চলার পর প্রেসিডেন্সি জেলে ঠাঁই হয় তার। পার্থ চ্যাটার্জীকে কখনো ‘মোটকা দা টুকি’, তো কখনো ‘চাকরি চোর’ টিপ্পনি শুনে তিতিবিরক্ত পার্থবাবু। নিজের করা কৃতকার্যের কথা শুনে আর সহ্য করতে পারছেন না তিনি। কিন্তু এবার খুনের অপরাধী যতীন তাকে রক্ষা করবে বাকিদের থেকে। পার্থবাবু আগে অবশ্য তাকে চিনতেন না, এক মহিলার সূত্রেই তার পরিচয়। এখানেও প্রশ্ন উঠেছে, ‘পার্থ বাবু ও এক মহিলা’। সে যাইহোক এখন পার্থ বাবু কিছুটা নিশ্চিন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *