অফবিট – কাটোয়ার সাঁতরা বাড়িতে বাড়ির বড়ো বৌমা পূজিতা হলেন দেবী শক্তি রূপে

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ ডেস্ক ::

 

 

 

 

ভারতীয় ধৰ্মীয় সংস্কৃতির খুবই বৈচিত্রময়। আর বাংলার বৈচিত্র যেন আরো বেশি। বিভিন্ন প্রথা যুগ যুগ ধরে এখানে পালিত হয়ে আসছে। তেমনি একটি নিদর্শন কাটোয়ার সাঁতরা বাড়ির কালী পুজো। গলায় রক্ত জবা কপালে লাল চন্দন এই বেশেই পূজিতা হন মা মুন্ডমালিনী। হ্যাঁ ঠিক এরকমই দেখতে অভ্যস্ত মায়ের ভক্তরা। কিন্তু এক্ষেত্রে মা কালী কোন চিন্ময়ী রূপের নন, মা সাক্ষাৎ জীবন্ত।যেখানে মন্ডপে মন্ডপে বা বিভিন্ন পারিবারিক পুজোতে দেবী কালীর মূর্তি পুজো করা হয়।সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে বাঁকুড়া জেলার ইন্দাসের মির্জাপুরে সাঁতরা বাড়িতে মূর্তির পরিবর্তে বড় বৌমাকে কালীর আসনে বসিয়ে পূজিত হতে দেখা গেলো। এই পুজো দেখতে এলাকার বহু মানুষের ভিড় হয়েছিল।

শোনা যায়, বহুকাল আগে কোনো স্বপ্নাদেশ পেয়েই নাকি এমন পুজোর আয়োজন প্রথম শুরু হয়। রীতি অনুযায়ী সাঁতরা পরিবারের বড় বৌমাকে গলায় রক্ত জবা এবং কপালের লাল চন্দনের তিলক দিয়ে সাজাতে দেখা গেল। তারপর শুরু হলো একেবারে শাস্ত্রমতে পুজো পাঠ। আর এই জীবন্ত দেবীর পুজো অর্চনা দেখতে দূর দুরান্ত থেকে ভিড় জমালেন অসংখ্য মানুষ। বহুকাল আগেই শুরু করেছিলেন মানবী দেবীর পুজো, সেই রীতি আজ অব্যাহত।আজও পরিবারের বড় গৃহবধূকে দেবীর আসনে বসিয়ে পুজো করা হলো আরম্ভরের সাথে। সেই সময় তাল পাতা দিয়ে তৈরি মন্দিরে মানবী দেবীর পুজো শুরু হয়েছিল সাঁতরা পরিবারের পূর্বপুরুষেরা।এখন অবশ্য পাকাপোক্ত মন্দির তৈরি হয়েছে, সেখানেই চললো দেবীর আরাধনা। এই সাঁতরা পরিবারের বর্তমানের বড় গৃহবধূ হীরা বালা সাঁতরা গত ৩৮ বছর ধরে মা কালি রূপে পূজিতা হয়ে আসছেন, এবারেও তার অন্যথা হলো না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *