নির্মম ‘গণধর্ষণের’ নজির থাকলো মালদা হরিশচন্দ্রপুর

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ ডেস্ক ::

 

 

 

 

বাঙালির রুচি, সংস্কৃতি, সংযম ও মূল্যবোধ কি সত্যিই তলানিতে এসে ঠেকেছে? যে ঘটনা ঘটেছে মালদা হরিশচন্দ্রপুরে – তারপর এই প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক। চরম নৃশংসতা দেখল মালদা । ঝোপের মধ্যে মহিলাকে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ। শুধু তাই নয়,গোপনাঙ্গ সহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় লঙ্কার গুড়ো ছড়িয়ে দিয়ে অকথ্য নির্যাতন। এরপরও শেষ হয়নি। অ্যাসিড ঢেলে মহিলার মুখ পুড়িয়ে খুন অভিযুক্তদের। মহিলার নাম পরিচয় এখনও পর্যন্ত জানতে পারা যায়নি। এমন ঘটনা দেখে মানুষ শিহরিত।

‘ধর্ষণ’ ও ‘গণধর্ষণ’ শব্দটা এখন বাঙালির খুব পরিচিত। কিন্তু তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এক নৃশংস মানসিকতা। ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের হরিশচন্দ্রপুর থানা এলাকায়। রবিবার সকালে প্রায় বীভৎস অবস্থায় মহিলাকে দেখতে পান এলাকাবাসীরা । দ্রুত তাঁরা খবর দেন হরিশচন্দ্রপুর থানায়। এলাকাবাসীর অনুমান নির্যাতিতার বয়স তিরিশের আশপাশে। জানা গিয়েছে, রাস্তার ধারে ঝোপের মধ্যে হিঁচড়ে নামানো হয়েছে তাঁকে। তার প্রমাণও রয়ে গিয়েছে রাস্তায়। এ দিন পুলিশ নগ্ন অবস্থায় উদ্ধার করলেও তাঁর জামা-কাপড় পড়ে ছিল ঘটনাস্থলেই। একই সঙ্গে পাশে পড়েছিল ব্যবহার করা বেশ কিছু কন্ডোম। ছিল ধারল ছুরি। এড়াও ছড়িয়ে ছিল লঙ্কার গুঁড়ো।
এ কোন বাংলা? বিশ্ববাসীর কাছে বাঙালিদের আর মুখ দেখানোর জায়গা নেই!

আসল কথা ভয় চলে গেছে ওই দূরবৃত্তদের। সম্প্রতি কামদুনি কাণ্ডের যে রায় বেরিয়েছে তাতে এমন দুষ্কৃতীদের ভয় হয়তো চলেই গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *