ভ্রমন – হিমালয়ের কোলে ছোট্ট রূপকথার জায়গা ‘মিরিক’

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ ডেস্ক ::

 

 

 

 

এই সময় একটু শান্তি, একটু স্বস্তি এনে দিতে পারে মিরিকের মতো শীতল জায়গা। লেপচা ভাষায় ‘মিরিক’ অর্থ আগুনে পুড়ে গঠিত হওয়া নতুন নগর। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৭৬৭ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিং জেলার ছোট্ট পাহাড়ি শহর হল মিরিক ।

মিরিকে যে জায়গাগুলোতে আপনাকে যেতেই হবে –

১) সামেন্দু লেক- মিরিকের প্রসিদ্ধ ভ্রমণস্থানগুলির মধ্যে অন্যতম প্রধান ভ্রমণস্থান হল সামেন্দু লেক। লেকের অদূরে কাঞ্চনজঙ্ঘার অবস্থান এবং ওক, পাইন ইত্যাদি গাছের অবস্থান মিলিয়ে অঞ্চলটিতে দৈবিকতার সৃষ্টি করেছে ।

২) বুঙ্কুলুং – আপনি যদি অফবিট ট্যুর করতে ভালোবাসেন তাহলে গাড়ি ভাড়া করে পৌঁছে যেতে পারেন বুঙ্কুলুং। এটি মূলত মিরিকের একটি প্রধান চাষক্ষেত্র । এই গ্রামটিতে ভ্রমণ করে পাহাড়ি গ্রামবাসীদের সঙ্গে আলাপ করে নিতে পারেন ।

৩) মিরিক চা বাগান – দার্জিলিং মানেই চা বাগান । তাই মিরিক ভ্রমণে গিয়ে চা বাগান ভ্রমণ না করলে পাহাড় ভ্রমণ অসম্পূর্ণ থেকে যায় । এই চা বাগানগুলি ভ্রমণ করে চা নির্মাণের প্রক্রিয়াগুলি জেনে নিতে পারেন ।

৪) রামেটায় ধারা – অন্যান্য হিল স্টেশনগুলির মতো মিরিকেও একটা ভিউ পয়েন্ট রয়েছে ; যা রামেটায় ধারা নামে পরিচিত । এখান থেকে আপনি তুষারশুভ্র কাঞ্চনজঙ্ঘাকে দর্শন করে নিতে পারেন ।

যাওয়া –

বিমানে – কলকাতা বিমানবন্দর থেকে বিমানে চেপে পৌঁছে যান বাগডোগরা বিমানবন্দর । সেখান থেকে গাড়ি ভাড়া করে ৪৮ কিমি দূরত্ব অতিক্রম করে পৌঁছে যেতে পারেন গন্তব্যে ।

ট্রেনে – শিয়ালদহ স্টেশন/ হাওড়া/ কলকাতা স্টেশন ট্রেনে ধরে প্রথমে পৌঁছে যান নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন । এরপর স্টেশন থেকে গাড়ি ভাড়া করে ৫৭ কিমি দূরত্ব অতিক্রম করে পৌঁছে যান বাঙালির অন্যতম প্ৰিয় হিল স্টেশন মিরিকে ।

থাকা – মিরিকে প্রচুর হোটেল এবং হোমস্টে রয়েছে । অনলাইনে সার্চ করে আপনার পছন্দ মতো হোটেল ভাড়া করে রাত্রিবাস করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *