খান প্রচুর ‘কাঁকরোল’ –  নানা অসুখ দূরে পালাবে

 

 

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ  ডেস্ক :সবুজ সবজির মধ্যে কাঁকরোল একটি আদর্শ ব্যালেন্স খাদ্য। খুব অল্প সময়ই বাজারে পাওয়া যায়। কাঁকরোলের অসাধারণ পুষ্টিগুণের কথা গবেষকেরা বলেন। বর্ষায় প্রচুর পরিমাণে কাঁকরোল পাওয়া যায় বাজারে৷ এই সবজিতে ফাইবার, মিনারেলস ও অন্যান্য পুষ্টিগুণে ভরা৷ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে এই সবজি৷ খাওয়া যায় ভাজা, তরকারি, পুরভরার নানা স্বাদে৷ ওজন ঝরিয়ে রোগা হতে চাইলে কাঁকরোল খেতেই হবে৷ এই সবজিতে কোনও ক্যালরি নেই৷ লো ক্যালরি এই সবজিতে জলের পরিমাণ প্রচুর৷ ব্যালান্সড ডায়েটের জন্য এই সবজি ছাড়া উপায় নেই৷ কাঁকরোলে ভিটামিন এ আছে পর্যাপ্ত পরিমাণে৷ তাই চোখের দৃষ্টিশক্তি অটুট রাখতে এই সবজি খেতেই হবে৷ চোখের সব অসুখকে দূরে রাখবে৷ পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা মনে করেন,বর্ষায় যে ক’দিন কাঁকরোল পাওয়া যায়, সেক’দিন কাঁকরোল খেলে সারা বছর বহু রোগ থেকে দূরে থাকা যাবে।

 

কাঁকরোলকে ব্যালেন্স খাদ্য বলার কারণ হলো, অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট, আলফা ক্যারোটিন, লাটেইন, বিটা ক্যারোটিন, জিজ্যান্থিসের মতো উপাদান ভরপুর হওয়ায় কাঁকরোল ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না৷ কাঁকরোল নিয়ন্ত্রণ করে ব্লাড সুগারকে৷ তাই ডায়াবেটিস রোগীদের ডায়েটে অবশ্যই রাখুন এই সবজি৷ ফাইবার প্রচুর থাকায় হজমে সহায়ক এই সবজি৷ পাকস্থলির সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করে পেট পরিষ্কার রাখে কাঁকরোল৷ একাধিক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকায় যকৃৎকে সুস্থ রাখে কাঁকরোলের গুণাগুণ৷ ভিটামিন বি-৬, ভিটামিন সি, ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, নায়াসিনের মতো উপাদান থাকায় ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ধরে রাখে কাঁকরোল৷ তাই কাঁকরোলকে খাদ্য তালিকায় রাখার চেষ্টা করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *