ইডির জেরায় বিধ্বস্ত নুসরত

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ ডেস্ক ::সব উত্তর দিয়ে দিয়েছি। প্রায় ছয় ঘণ্টা জেরা শেষে ইডির দফতর থেকে বেরিয়ে এমনটাই বললেন নুসরত জাহান। একই সঙ্গে ধন্যবাদ জানালেন সবাইকেও। ফ্ল্যাট প্রতারণা মামলায় আজ মঙ্গলবার তাঁকে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরার নির্দেশ দেন ইডির তদন্তকারী আধিকারিকরা।

সেই মতো সকাল ১১ টার আগেই ইডির দফতরে পৌঁছে যান সাংসদ। এরপর সিজিও কমপ্লেক্সের সাততলায় প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। দু’দফায় বহিরাহাটের সাংসদকে জেরা করা হয়। একই সঙ্গে তাঁর আয়-ব্যায়ের যাবতীয় নথিও তদন্তকারীরা জমা নেন বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, অভিনেত্রী সাংসদের বিরুদ্ধে ফ্ল্যাট দেওয়ার নাম করে কয়েক কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। গড়িয়াহাটের একটি রিয়েল এসস্টেট কোম্পানির ডিরেক্টর ছিলেন তিনি। আর সেই পদে থাকাকালীনই কোটি কোটি টাকা প্রতারণা করা হয়েছে। প্রায় ২৪ কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে।

আর এই বিষয়ে ইডির কাছে অভিযোগ জানান বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পান্ডা। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই নুসরতকে তলব করে এদিন। এবং প্রায় ছয় ঘন্টা ধরে জেরা করা হয়। আর দীর্ঘ এই জিজ্ঞাসাবাদে একাধিক বিষয়ে নুসরতের কাছ থেকে তদন্তকারী আধিকারিকরা জানতে চান। বিশেষ করে প্রতারণার টাকা কোথায় গেল? সে বিষয়েও জানতে চান না আধিকারিকরা।

শুধু তাই নয়, অভিনেত্রীর ফ্ল্যাট সহ বিপুল সম্পত্তির পিছনে কি প্রতারনার টাকা? সেটাও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। আর সেই কারনেই আয় ব্যায়ের যাবতীয় নথি চাওয়া হয় সাংসদের কাছ থেকে। আর সেই তথ্য ইতিমধ্যে ইডির কাছে জমা দিয়েছেন বলেও খবর।

তবে ফের একবার নুসরতকে তলব করবে কিনা তা স্পষ্ট নয়। এমনকি এই বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলেও বিষয়টি এড়িয়ে যান নুসরত। শুধু তিনি জানান, যা জানতে চেয়েছিল সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছি। তবে দীর্ঘ জেরায় রীতিমত বিধ্বস্ত হয়ে পড়েন নুসরত। চোখেমুখে ক্লান্তির ছাপও ধরা পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *