সলমনের বাড়িতে অরিজিৎ সিং, তা আবার মধ্যরাতে? কৌতূহলি অনুরাগী মহল।

বেঙ্গল ওয়াচ নিউজ ডেস্ক ::

 

 

 

 

বলিউডের দুই কিংবদন্তি শিল্পী সলমন খান ও অরিজিৎ সিং। প্রথমজন বিখ্যাত অভিনেতা আর দ্বিতীয়জন সংগীত জগতের মানুষ। দুজনেই নিজস্ব প্রতিভায় প্রতিষ্ঠিত। তবুও দীর্ঘ ৯ বছর আগের একটি ছোট ঘটনাকে কেন্দ্র করে এমন পরিস্থিতি তৈরী হয় যে দুজনকে আর এক ছাতার তলায় দেখে যায় নি। কিন্তু বুধবার মধ্য রাতে অরিজিতের গাড়ি ঢুকতে দেখা যায় সলমন খানের
গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে। তারপরেই ছড়িয়ে পরে গুঞ্জন। তবে কি মান অভিমানের বরফ গেলেছে দুজনের? সেই প্রসঙ্গে যাওয়ার আগে এই খ্যাতির শীর্ষে বসে থাকা দুজনকে একটু চিনে নেওয়া যাক।

অরিজির সিং – অরিজিৎ সিং হলেন হলেন একজন বাঙালি নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী। একটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং সাতটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সহ বেশ কয়েকটি প্রশংসার প্রাপক। তিনি বেশ কয়েকটি ভারতীয় ভাষায় গান রেকর্ড করেছেন। তিনি তার নম্র ব্যক্তিত্ব এবং সরল জীবনযাপনের জন্যও পরিচিত। তাঁর নির্মল সরল ‘হাসি’ তাঁর চরিত্রের অন্যতম সম্পদ। অরিজিৎ সিং হিন্দির পাশাপাশি বাংলা গানের জগতের সম্যক জনপ্রিয়। টলিউড বাংলা ছবিতে তাঁর গাওয়া অসংখ্য হিট গান রয়েছে। তিনি বেশ কয়েকজন খ্যাতনামা সঙ্গীত পরিচালক, যেমন: মিথুন শর্মা,  বিশাল-শেখর এবং প্রীতমের সহ যোগী হিসেবে কাজ করেন। বলিউডে তাঁর গাওয়া প্রথম গান ছিল মিথুনের সঙ্গীত পরিচালনায় মার্ডার ২ মুভির ‘ফির মহব্বত’ গানটি। গানটি সে সময় মোটামুটি ভালই জনপ্রিয়তা লাভ করে। তবে, ২০১৩ সালে মুকেশ ভাটের প্রযোজিত ছবি আশিকি ২-তে কয়েকটি গানে কন্ঠ দেওয়ার পর তিনি রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। বিশেষত ওই ছবিতে ‘তুম হি হো’ গানটি গাওয়ার পর তিনি সঙ্গীতপ্রেমীদের আইকন হয়ে ওঠেন। এটা তাকে তারকাখ্যাতি এনে দেয়। গানটির জন্য তিনি ৫৯ তম ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস-এ সেরা পুরুষ গায়কের পুরস্কার অর্জন করেন। ২০১৪ সালে তিনি জিৎ গাঙ্গুলীর সুুর ও কমপোজ করা ‘মুসকুরানে’ গানটি গান। এই গানের জন্য সে বছর তিনি সবচেয়ে বেশি নমিনেশন পান। ২০১৬ সালে তিনি ‘সুরাজ ডুবা হ্যায়’ গানের জন্য ও ২০১৭ সালে এ ‘দিল হ্যায় মুশকিল’ গানের জন্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। তারপরে তাঁকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয় নি। শুধুই সামনে এগিয়ে গেছেন। এখন তিনি ভারতের বিশেষ করে বলি ও টলিদের অন্যতম প্লেব্যাক সিঙ্গার।

সলমন খান – মুম্বইয়ের অন্যতম অভিনেতা সলমন খানের পুরো নাম আব্দুর রশিদ সেলিম সালমান খান। তিনি হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক এবং টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব। ত্রিশ বছরের অধিক সময়ের কর্মজীবনে তিনি অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন, তার মধ্যে রয়েছে চলচ্চিত্র প্রযোজক হিসেবে দুটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও অভিনয়ের জন্য দুটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার।  বলিউডের সবচেয়ে বড় তারকা সালমান খানকে বিশ্ব ও ভারতীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম ব্যবসা সফল অভিনয়শিল্পী বলে আখ্যায়িত করা হয়। চিত্রনাট্যকার সেলিম খানের জ্যেষ্ঠ পুত্র সালমান খান ১৯৮৮ সালে ‘বিবি হো তো অ্যায়সি’ চলচ্চিত্রে একটি গৌণ ভূমিকায় অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন। এই ছবিতে কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেতা বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। এর পরেই একে একে তাঁর অভিনয় ঝুড়ি ভরে ওঠে প্রচুর সফল সিনেমা দিয়ে। তারমধ্যে অন্যতম করণ অর্জুন , বিবি নাম্বার ওয়ান, হাম সাথ সাথ হ্যাঁয়, প্যায়ার কিয়া তো ডরনা ক্যায়া,দাবাং, সুলতান, টাইগার সিরিজ। এছাড়া ২০১০ সাল থেকে তিনি ‘বিগবস’  প্রতিযোগিতার সঞ্চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এবার সাম্প্রতিক প্রসঙ্গ।
দীর্ঘ ৯ বছরের দূরত্বে ইতি? বুধবার রাতে মুম্বইয়ে সলমন খানের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে পৌঁছলেন অরিজিৎ সিং। আর এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই সলমন ও অরিজিৎ সিং উভয় অনুরাগীদের মধ্যেই উৎসাহের অন্ত নেই। সকলেরই প্রশ্ন তবে কি সলমন শেষপর্যন্ত অরিজিৎকে আপন করে নিয়েছেন? সেই প্রসঙ্গে যাওয়ার আগে এই দুই ব্যক্তিত্বের লড়াইয়ের উৎসে যেতে হবে। সালটা ছিল ২০১৪। অরজিৎ তখন নিজের কেরিয়ার গড়তে লড়াই করছেন। সেরা গায়কের পুরস্কার ঘোষণার পর মঞ্চে আসতে বেশ কিছুটা দেরি করেন অরিজিৎ। কারণ, দর্শকাসনে বসে তিনি নাকি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন! পরে জানা যায়, সারারাত জেগে গানের স্টুডিওতে কাজের পর ওই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে পৌঁছেছিলেন অরিজিৎ। সহজ, সরল, সাদাসিধে অরিজিতের পরনে ছিল ক্যাজুয়াল শার্ট, পায়ে হাওয়াই চটি। ঘুম চোখে মঞ্চে উঠবার পর ভাইজান স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে প্রশ্ন করেন, ‘ঘুমিয়ে গিয়েছিলে’? জবাবে অরিজিত সহজভাবে মজা করে বলে বসেন, ‘কী করব? আপনারা ঘুম পাড়িয়ে দিলেন?’ তবে সলমনের মনে হয়েছিল অরিজিৎ তাঁর সঞ্চালনা নিয়ে বাঁকা জবাব দিয়েছেন। আর তাতেই অসম্মানিত বোধ করেছিলেন দাবাং খান। এমনকি সেদিন ক্যামেরার সামনেও সেই অভিব্যক্তি লুকিয়ে রাখেননি ভাইজান। সলমন পালটা জানান, ‘এইরকম গান গাইলে লোকে ঘুমিয়েই যাবে’। এই ঘটনার পরই সলমন-অরিজিতের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। তার পর থেকে সলমন তাঁর কোনো ছবিতেই অরিজিতের গান নিতে রাজি হন নি।

অরিজিৎ সিংএর গাড়ি ঢুকছে সলমনের বাড়িতে – এই দৃশ্যটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই ফিরে আসে ৯ বছর আগের সেই বিতর্ক ও ঘটনা। ভিডিয়োটি একটি ফ্যানক্লাবের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে পোস্ট হয়েছে। ক্যাপশানে লেখা হয়েছে ‘অরিজিৎ সলমনের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে’। কী ঘটতে চলেছে? তবে কি শেষপর্যন্ত সলমনের সঙ্গে দেখা যাবে বাংলার অরিজিৎ সিংকে। অনুরাগীদের প্রশ্ন, তবে কি আসন্ন টাইগার থ্রি, বিষ্ণুবর্ধন বা করণ জোহরের সঙ্গে যে ছবিটি সলমন খান করতে চলেছেন, তাতে গান গাইবেন অরিজিৎ সিং? সেই কারণেই কি অরিজিতের সঙ্গে বৈঠক করলেন সলমন। তবে ঘটনা যাই হোক, সলমন-অরিজিতকে একসঙ্গে দেখে উৎসাহের অন্ত নেই দুই তারকার অনুরাগীদের। যদি সত্যিই তাই হয় তাহলে তৈরী হবে এক নতুন জুটি।

৯ বছর আগের ওই ঘটনার পরে সলমন খুবই ক্ষুব্ধ ছিলেন অরিজিতের উপর। এরপর থেকে অরিজিৎ আর সলমন খানের কোনও ছবিতে গান গাননি। এমনকি সলমনের কিছু ছবি সঙ্গীত পরিচালক অরিজিৎকে নেওয়ার কথা ভাবলেও সলমন নাকি তাঁকে সরিয়ে দিয়েছেন বলে শোনা যায়। অরিজিৎ অবশ্য পরে জানিয়েছিলেন, তিনি ভাইজানের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন, তবে তারপরেও ক্ষমা মেলেনি। তবে কেরিয়ারের শুরু থেকে সলমনের ছবিতে গান গাওয়ার সুযোগ না মিললেও অরিজিৎ সুযোগ পেয়েছিলেন কিং খানের ছবিতে গান গাওয়ার। শাহরুখের আবার অরিজিতের গান বেশ পছন্দ। আর অরিজিত ধীরে ধীরে গায়ক হিসাবে নিজের জাত চিনিয়েছেন। নিজের কেরিয়ারে দীর্ঘ উচ্চতায় পৌঁছেছেন। তবে সে তো নাহয় হল, সবশেষে এখন অবশ্য প্রশ্ন একটাই, তবে কি এবার সত্যিই সলমন-অরিজিৎ দ্বন্দ্বের ইতি হল? এবার কি সলমনের ছবিতে শোনা যাবে অরিজিতের গান?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *